September 29, 2020, 12:04 am


নোয়াখালীতে মা-মেয়েসহ চারজনের লাশ উদ্ধার

নোয়াাখালীর (হাতিয়া):

নোয়াাখালীর হাতিয়া ও সুবর্ণচর উপজেলায় পানিতে ডুবে মা-মেয়েসহ তিনজনের মৃত্যু হয়েছে। সুবর্ণচরে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে মারা গেছেন আরও একজন। মা-মেয়ের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

শনিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টা, রাত ৮টা ও রাত ৯টার দিকে লাশগুলো উদ্ধার করা হয়।

নিহতরা হলেন- হাতিয়া উপজেলার জাহাজমারা ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডের ম্যাকপার্শন গ্রামের সোহরাব হোসেনের স্ত্রী আকলিমা আক্তার (২৩), আকলিমার মেয়ে মরিয়ম আক্তার সালমা (২), সুবর্ণচর উপজেলার চরবাটা ইউনিয়নের চরমজিদ গ্রাম ভূঁইয়ারহাট এলাকার দিলাল মিয়ার মেয়ে লাইবা জাহান (৫) ও একই ইউনিয়নের হাজীপুর গ্রামের নান্টু সূত্র ধরের ছেলে দেবু সূত্র ধর (৩৫)।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, শনিবার দুপুরে জাহাজমারা ৮নং ওয়ার্ডের সোহরাবের স্ত্রী তার শিশু সন্তান সালমাকে নিয়ে পাশ্ববর্তী বাড়ীর একটি পুকুরে গোসল করতে যায়। এরপর থেকে তারা দুইজন আর বাড়ী ফিরে আসেনি। পরিবারের লোকজন পাশ্ববর্তী বাড়ীগুলোসহ বিভিন্ন জায়গায় খুঁজে তাদের কোন সন্ধান পায়নি। সন্ধ্যার দিকে ওই পুকুরের ভিতর আকলিমার লাশ ভাসতে দেখে একজন প্রতিবেশী। পরে স্থানীয় লোকজনের সহযোগিতায় তার লাশ উদ্ধার করলেও সালমা নিখোঁজ ছিল। শিশুটির লাশ পুকুরে থাকতে পারে এমন সন্দেহে এলাকার লোকজন পুকুরে জাল ফেলতে থাকে। রাত ৮টার দিকে তাদের জালে সালমার লাশ আটকা পড়ে।

হাতিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল খায়ের বলেন, নিহত মা-মেয়ের লাশ উদ্ধার করে থানায় আনা হয়েছে। প্রাথমিকভাবে পরিবারের লোকজন বলছে পানিতে ডুবে তাদের মৃত্যু হয়েছে। অভিযোগ না থাকলে ময়না তদন্ত ছাড়া লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হবে।

এদিকে জেলার সুবর্ণচর উপজেলার চরবাটা ইউনিয়নের চরমজিদ গ্রামের ভূঁইয়ারহাট বাজারের পাশ্ববর্তী দিলালের মেয়ে লাইবা জাহান বিকালে বাড়ীর বাচ্চাদের সাথে বাড়ীর আঙিনায় খেলছিল। সন্ধ্যার দিকে তাকে ঘরে ফিরতে না দেখে তার বাবা মা বিভিন্ন স্থানে খোজাখুঁজি করে। পরে রাত ৯টার দিকে তাদের বাড়ীর পুকুরের মধ্যে লাইবা জাহানের লাশ ভাসতে দেখে উদ্ধার করে পরিবারের লোকজন।

অপরদিকে সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে সুবর্ণচর উপজেলার পূর্ব চরবাটা ইউনিয়নে হাজীপুর গ্রামের বিদ্যুৎস্পৃষ্টে দেবু সূত্র ধর (৩৫) এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে। তিনি পেশায় একজন কাঠমেস্ত্রী ছিলেন।

স্থানীয়রা জানান, সন্ধ্যা ৭টার দিকে তার বাড়ীর বিদ্যুতের লাইনে সমস্যা করায় তা মেরামত করতে বাড়ীর পাশের বিদ্যুতের খুঁটিতে (খাম) উঠে যায় দেবু। এর কিছুক্ষণ পর খুঁটির উপর থেকে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে নিছে মাটিতে পড়ে যায় সে। পরিবারের লোকজন আহত অবস্থায় দেবুকে উদ্ধার করে সুবর্ণচর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

 

0Shares

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


সংবাদ পড়তে লাইক দিন ফেসবুক পেজে