July 31, 2020, 6:17 am


সুশান্তের আত্মহত্যার পরে সালমানকে বয়কটের ডাক

অনলাইন ডেস্ক

সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুতে স্তব্ধ গোটা বলিউড। জানা গেছে, বেশ কিছুদিন ধরে অবসাদে ভুগছিলেন তিনি। সুশান্তের আতœহত্যার পিছনে বলিউডের নেপোটিজম এর বড় ভূমিকা রয়েছে, এমন অভিযোগ উঠছে। এরই মধ্যে সোশ্যাল মিডিয়ায় এক বিস্ফোরক পোস্ট করলেন অনুরাগ কাশ্যপের দাদা অভিনব কাশ্যপ।

অভিনবের দাবি সুশান্তকে আত্মহত্যা করতে বাধ্য করা হয়েছে। কেন অভিনেতা আত্মহত্যা করলেন সেই ব্যাপারেও তিনি পূর্ণাঙ্গ তদন্ত করা হোক বলে সরকারের কাছে দাবি করেছেন। এমনকি বলিউড সুপারস্টার সালমান খান ও তার পরিবারের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দিয়েছেন অভিনব কাশ্যপ। সালমান খান, সোহেল খান এবং আরবাজ খান তিনজনে মিলে তার ক্যারিয়ার নষ্ট করে দেওয়ার জন্য ব্যতিব্যস্ত হয়ে উঠেছেন বলেও দাবি করেছেন তিনি।

দাবাং ছবিটি সফল হওয়ার পর যখন দাবাং টু এর কাজ শুরু করেন তখন এই ঘটনার শুরু বলে জানিয়েছেন তিনি। এমনকি অভিযোগ তাদের কথা মতন না চললে খুন ও পরিবারের নারীদের ধর্ষণের হুমকিও দেয়া হয় অভিনবকে। অভিনব এই নিয়ে ফেসবুকে একটি লম্বা পোস্ট করেছেন।
তিনি লিখছেন, সুশান্ত সিং রাজপুতের আত্মহত্যার এই ঘটনা আরো অনেক বড় সমস্য কে সামনে এনে দিয়েছে যে গুলোর মধ্যে দিয়ে আমরা অনেকেই যাচ্ছি। এমন কি হতে পারে যেটা মানুষকে আত্মহত্যা করতে বাধ্য করে?” তিনি আরও বলছেন, বলিউডের বহু ট্যালেন্ট ম্যানেজার এবং ট্যালেন্ট ম্যানেজমেন্ট এজেন্সি আসলে শিল্পীদের জন্য মৃত্যুফাঁদ।

নিজের অভিজ্ঞতা শেয়ার করে অভিনব লিখছেন, আমারও একই রকম অভিজ্ঞতা। প্রথমেই আমি দেখেছিলাম কিভাবে ব্যবহার করা হয় এবং মানসিকভাবে অত্যাচার করা হয়।” তিনি জানিয়েছেন সালমান খান দাবাং ছবির পরে তার ক্যারিয়ার নষ্ট করে দেওয়ার জন্য উঠে পড়ে লেগেছেন। সালমান একা নন। তার ভাই সোহেল ও আরবাজ ও একই কাজ করেছেন।

পোষ্টের শেষে তিনি লিখেছেন, “এটা কোনো হুমকি নয়। এটা ওপেন চ্যালেঞ্জ। সুশান্ত সিং রাজপুত এগিয়ে গিয়েছেন এবং আমি আশা করি ও যেখানে আছে ভালো আছে। কিন্তু আমি এই ব্যাপারটা নিশ্চিত করব যে আর কোনো নিরীহ প্রাণ কে যেন এভাবে শেষ হতে না হয়। তারা যেন সম্মান নিয়ে বলিউডে বেঁচে থাকতে পারেন। আমি আশা করি যারা এই একই পরিস্থিতির মধ্য দিয়ে যাচ্ছেন তারা আমার এই পোস্ট শেয়ার করবেন।” অভিনব এমনকি সালমান খানকে বয়কট করার ডাক দিয়েছেন নেটিজেনদের কাছে।

 

0Shares

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


সংবাদ পড়তে লাইক দিন ফেসবুক পেজে